পুনরায় কমল দৈনিক করোনা COVID-19 আক্রান্তের সংখ্যা

পুনরায় কমল দৈনিক করোনা COVID-19 আক্রান্তের সংখ্যা। গতকাল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৬৬ হাজারেরও বেশি এবং এটি হয়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯৪২। গত কয়েকদিন ধরে গ্রাফ নিচের দিকে নামছে কিন্তু কমছে না মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৮৭৬ জনের।

আগামীদিনেও যদি এরকমভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাকমতে থাকে, তাহলে খানিক আশার আলো দেখা যাবে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহালমহল।কারণ, বহু ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, যখনই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে তারপরই একবার-এই হঠাৎ করে অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। তবে ভ্যাকসিনও নিয়ে ফেলেছেন প্রায় ১৭ কোটিরও বেশি ভারতবাসী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী,২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৫৬ হাজার ০৮২ জন মানুষ।  করোনা থেকে মুক্ত হয়েছে ১ কোটি ৯০ লাখ ২৭ হাজার ৩০৪ জন মানুষ। নতুন করে সংক্রমণ ঘটায়, মোট আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে ২ কোটি ২৯ লাখ  ৯২ হাজার ৫১৭। মোট মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯২। এখনও পর্যন্ত সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩৭ লাখ ১৫ হাজার ২২১ জন।

ভারত জানুয়ারি থেকে কোভিড -19 pandemic মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে। তারপর থেকে, ভাইরাসটি প্রায় প্রতিটি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ছে । মহামারী পশ্চিমবঙ্গ -এ খুবই তাড়াতাড়ি ছড়িয়ে পড়ছে । এই বছরের জানুয়ারিতে ভারত তার টিকা কার্যক্রম শুরু করেছে কোভিড -19  virus ভাইরাসের বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলার জন্য।

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য বিভাগ নেতিবাচক অপচয় জনিত কারণে রাজ্যকে বাঁচানোর জন্য  COVID-19 ভ্যাকসিনের অতিরিক্ত মাত্রা পরিচালনার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে প্রাপ্ত সিরিঞ্জের পাশাপাশি 20 লক্ষ সিরিঞ্জ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিকের মতে, রাজ্য যে পরিমাণ সিরিঞ্জ পায় তা ডোজের সংখ্যার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। কিন্তু সংবাদ সংস্থা আইএএনএসের মতে, বাংলায় নেতিবাচক অপচয় নিবন্ধিত হয়েছিল, যা প্রকৃতপক্ষে প্রাপ্তির চেয়ে বেশি ডোজ পরিচালনা করেছিল । এর ফলে সরবরাহ করা  বেশি সিরিঞ্জের ব্যবহার হয়েছে, যার ফলে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তাই  এই অভাব মেটাতে রাজ্য সরকার এখন প্রায় 20 লক্ষ সিরিঞ্জ সংগ্রহ করবে।

পশ্চিমবঙ্গ তার নির্ধারিত কোটা থেকে গত তিন মাসে ভ্যাকসিনের প্রায় ১ lakh লাখ অতিরিক্ত ডোজ বের করতে পেরেছে শুধুমাত্র অপচয়ের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য একটি শিশিতে দেওয়া অতিরিক্ত মাত্রা সংরক্ষণ করে।পশ্চিমবঙ্গের পর কেরলই একমাত্র রাজ্য যেখানে দক্ষতার সাথে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে নেতিবাচক অপচয় রেকর্ড করেছে এবং কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে প্রশংসা অর্জন করেছে।

আরও পড়ুন-https://www.latestbengalinews.com/redmibook-15-pro/

আরও পড়ুন-https://zeenews.india.com/india/west-bengal-face

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

আপনার Facebook প্রোফাইল কে চেক করছে? জেনে নিন খুবই সহজ উপায়ে…

আপনার Facebook প্রোফাইল কে চেক করছে? জেনে নিন খুবই সহজ উপায়ে…। বর্তমানে প্রায় সমস্ত …